তথ্যপ্রযুক্তির পথে পথচলা …(১)

         সেই ১৯৯৮ সালে হাতে খড়ি কম্পিউটারে । তখন কেবল শিখছি চালু করা বন্ধ করা , টুকটাক লেখালেখি ইত্যাদি । বাংলা লেখার জন্য বিজয় শিখেছি কারণ এটাই তখন সবচেয়ে জনপ্রিয় । তখন মাঝে মাঝে মনে হতো এই যে উইন্ডোজ ব্যাবহার করি এর সব মেনু সব কিছু english এ । ঈশ এগুলো যদি বাংলায় দেখতে পেতাম !!!!!!!!! তখনও রাজশাহী তে ইন্টারনেট সুলভ হয়নি । অন্তত: আমার নাগালের মধ্যে আসেনি । সন্ধানীর অফিস রুমে রাখা সেই AMD K6 450Mhz প্রসেসরের কম্পিউটার দিয়ে যাত্রা শুরু করি । তখন ফার্ষ্ট ইয়ার ; সবচেয়ে জুনিয়র তাই যখন খুশী তখন কম্পিউটার রুমের চাবি নিয়ে একা একা ভ্রমন করতে থাকি সিলিকন জগতে ।

         এরপর রাজশাহীতে ইন্টারনেট এলো ২ টাকা মিনিট !!!!!! ঘন্টা ১২০ টাকা । মাথায় হাত । একদিন গেলাম সাহেব বাজারের chartered computer এ । yahoo এর সাইট খুলে অধীর আগ্রহে বসে আছি … কত সময় যে লাগে লোড হতে!!!!!!!!!!!!!!!!১১ একটা ইমেইল একাউন্ট খুলে ফেললাম । বাপরে !! বিল দিতে গিয়ে দেখি ইতিমধ্যে আমার বিল হয়েছে ১২০ টাকা । বুঝলাম এখনও সময় হয়নি । আরও ৩ মাস কেটে গেল তখন আনন্দ মাল্টিমিডিয়ার রেজা ভাই রাজশাহী শাখা নিউমার্কেটের কাছেই একটা সাইবার ক্যাফে খুললেন .. ঘন্টা প্রতি ৪৫ টাকা করে । এবার মনে হলো কিছুটা হাতের নাগালে …. তারপর ধীরে ধীরে লক্ষীপুর মোড়ে কম্পিউটার ওয়ার্ল্ড নিয়ে এলো ৩০টাকা …সহ্য সীমার মধ্যে । তাছাড়া আমার যাতায়ত খরচ ও কমে এল । আরও পরে উপশহরে একটা ক্যাফে নিয়ে এল ১৫ টাকা/ঘন্টা । আবার দৌড়ালাম সেখানে । ২০০২ এ লক্ষীপুর মোড়ে এল বি.কে সাইবার ক্যাফে । ততদিনে রাজশাহীতে ব্রডব্যান্ড নাচানাচি করছে । মানে ওই কেবল আর কি । তবুও ডায়াল আপ থেকে তো মুক্তি ।


     এর পর বি,কে এর শওকত এবং অন্যান্য স্টাফ যেমন মানি ভাই , রবিন ভাই , সাঈদ, রাতুল ,আরও অন্যান্য যার তখন এর সাথে যুক্ত ছিল সবার সাথে বেশ ভালো খাতির জমে ওঠায় আমি নিয়মিত ব্যাবহার কারী হয়ে গেলাম । মূলত এই ক্যাফে টি আমার অনেক পরীক্ষা নীরিক্ষার কাজে বেশ ভালো সহযোগিতা করেছে । এখানে আমি ঘন্টার পর ঘন্টা ব্রাউজ করেছি অনেক কম মূল্যে । এমনকি ইন্টারনেট থেকে পাওয়া ফ্রি সফটওয়্যার গুলো নামিয়ে তা ইনষ্টল করে ব্যাবহার করে দেখেছি । এ ব্যাপারে ওরা অনেক সহযোগিতা করেছে আমাকে । তবে দু:খের কথা আমি রাজশাহী ছাড়লাম ডিসেম্বরে আর ব্যবস্থাপনার দুর্বলতায় ক্যাফে বন্ধ হয়ে গেল ২৬ শে নভেম্বর । খুব খারাপ লাগছিল সেদিন । চোখের সামনে বন্ধ হয়ে গেল একটা চালু স্ইবার ক্যাফে । তবে এখনও শওকতের সাথে যোগাযোগ হয় ফোনে ।
    মূলত: বাংলায় তথ্য প্রযুক্তি ব্যাবহারের সেই শুরুটা আমার হয়েছিল ২০০১ সালে  । কম্পিউটার টুমরো , জগত এরা বেশ জাকিঁয়ে তুলেছিল ব্যাপারটা । আর আমিও একজন নগন্য সাধারণ ব্যাবহারকারী হিসাবে শুরু করলাম পথ চলা ।

2 responses to “তথ্যপ্রযুক্তির পথে পথচলা …(১)

  1. আপনার এই লেখা টা না পড়লে হয়তো অনেক কিছু জানা হতো না। আগে অনেক টাকা খরচ কের ইন্টারনেট ব্যবহার করতে হতো। আর এখন তো অনেক কম খরচ।

    ১২০ টাকা চিন্তা করলে মাথা ঘুড়ে যায়। আমার কাছে ১৫ টাকা অনেক কিছু মনে হয়। মাত্র ১ ঘন্টা।

    আচ্ছা আপনার বাসায় কি নেট আচে….নাকি আপনি সাইবার কেফে থেকে ব্লগিং করেন। একটু জানাবেন প্লিজ..

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s